1. pragrasree.sraman@gmail.com : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী
  2. avijitcse12@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক :
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৪:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কুয়াকাটায় মন্দিরের জায়গায় অবৈধ স্থাপনা, রাখাইনদের মানববন্ধন অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন নিলেন দালাইলামা   চট্টগ্রামের  প্রচেষ্টা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নতুন কমিটি গঠন চট্রগ্রামে ধাতু প্রদর্শনীসহ সংঘদান ও জ্ঞাতিভোজ ১০ মার্চ রেণুপ্রভা-প্রিয়রঞ্জন ফাউন্ডেশনের’র সংঘদান ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান কর্মজ্যোতি জিনানন্দ মহাথের’র জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান পরলোকে সবিতা রানী বড়ুয়া কর্মজ্যোতি জিনানন্দ মহাথের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শুরু মুন্সিগঞ্জে ১১শ বছরের পুরোনো বৌদ্ধ কুঠুরি আবিষ্কার রামুর ভুবন শান্তি ১০০ ফুট দীর্ঘ সিংহ শয্যা গৌতম বুদ্ধমূর্তি পরিদর্শনে মার্কিন রাষ্ট্রদূত

বিহারের নালন্দার রাজগিরে ৭০ ফুট উঁচু বুদ্ধমূর্তির আবরণ উন্মোচন

প্রতিবেদক
  • সময় সোমবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৮
  • ২৮৮ পঠিত

হ্রদের মধ্যে বিরাট উঁচু বুদ্ধমূর্তি। তার উচ্চতা ৭০ ফুট। দেশের দ্বিতীয় উচ্চতম বুদ্ধমূর্তি এটি। সোমবার ভারতের বিহারের নালন্দা জেলার রাজগিরে ঘোরা কাটরা হ্রদের মধ্যে সেই বুদ্ধমূর্তির আবরণ উন্মোচন করলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহাবোধি মন্দিরের প্রধান ভিক্ষু ভান্তে চালিন্দা।

মুর্তিটি বিশাল একটি পিঙ্ক স্যান্ড স্টোনের বেদীর ওপরে অবস্থিত। তার আয়তন ৪৫ হাজার ঘন ফুট। পরিধি ১৬ মিটার। মূর্তির আবরণ উন্মোচন করে নীতীশ কুমার বলেন, ঘোরা কাটরা হ্রদ এক ঐতিহাসিক স্থান। এটি প্রাকৃতিক জলাশয়। এর চারপাশে পাঁচটি পাহাড় আছে। আগে প্রতিটি পাহাড়ে বুদ্ধমূর্তি ছিল । এখনও অনেকে এই হ্রদের তীরে তথাগত বুদ্ধের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

ঘোরা কাটরা লেক ঘিরে বিহার সরকারের পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা আছে। নীতীশ কুমার বলেন, হ্রদের পাশে একটি সুন্দর উদ্যান গড়ে তোলা হবে। জায়গাটি ইকো-ট্যুরিজমের পক্ষে আদর্শ স্থান হয়ে উঠবে। এখানে কোনও পেট্রল বা ডিজেল চালিত যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে না। এখানে বিদ্যুৎচালিত গাড়ি, সাইকেল অথবা টাঙ্গায় চড়ে ঘোরা যাবে।

ঘোরা টাকরা লেক কেবল বৌদ্ধধর্মের নয়, অন্যান্য ধর্মের মানুষের কাছেও পুণ্য তীর্থ। গুরু নানকদেব এই অঞ্চলে এসেছিলেন। শিখ ধর্মাবলম্বী অনেকে চেয়েছিলেন গুরু নানক শীতল কুণ্ডের কাছে একটি গুরুদোয়ারা নির্মাণ করা হোক। বন দফতর এবং কেন্দ্রীয় সরকার তাতে অনুমতি দিয়েছে। খুব শীঘ্র গুরুদোয়ারা নির্মাণ শেষ হবে। এদিন নীতীশ রাজগির মহোৎসবেরও উদ্বোধন করেন।

শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো
© All rights reserved © 2019 bibartanonline.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarbibart251
error: Content is protected !!