1. pragrasree.sraman@gmail.com : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী
  2. avijitcse12@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক :
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:১২ পূর্বাহ্ন

শ্বশুরালয়ে গমনযোগ্য কুমারীগণকে বুদ্ধের উপদেশ

প্রতিবেদক
  • সময় বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৯৮১ পঠিত

জ্ঞানশ্রী ভিক্ষু :
একসময় ভগবান বুদ্ধ ভদ্রিয় নগরের নিকটবর্তী জাতীয় বনে অবস্থান করার সময় উগ্রহ মেণ্ডকনত্তা শ্রেষ্ঠী কর্তৃক নিমন্ত্রিত হয়ে তাঁর গৃহে গমণ করেছিলেন। পিণ্ড গ্রহণের পর বুদ্ধ তাহার বিবাহযোগ্য কুমারীগণকে নিম্নোক্ত উপদেশ প্রদান করেছিলেন।

১) প্রত্যূষে স্বামীর পূর্বে ঘুম থেকে জাগ্রত হবে।
২) পিতামাতা, শ্বশুর-শ্বাশুড়ী ও স্বামীসহ গুরুজন ও অতিথিদের সেবা ও শ্রমণ ভিক্ষুগণের সতকার, পূজা ও সম্মান করবে।
৩) সূচীশিল্প থেকে আরম্ভ করে গৃহের যাবতীয় কর্ম দক্ষতার সাথে সম্পন্ন করবে।
৪) স্বামীর গৃহে দাসদাসী ও কর্মচারীদের প্রতি সমভাব ও সুদৃষ্টি বজায় রাখবে।
৫) স্বামীর সম্পত্তি সংরক্ষণ করা ও অপচয় না করা, পর পুরুষের প্রতি আসক্ত না হওয়া, সুরাপানে আসক্ত না হওয়া, সম্পত্তি নষ্ট হয় মত কোন কাজ করবেনা।
৬) বিবাহের পর স্বামীর বাড়ীতে ভিক্ষুসংকে পিণ্ডদান ও ভোজনান্তে পঞ্চশীল গ্রহণ করবে ও তাঁদের থেকে উপদেশ শ্রবণ করবে।

সর্বদর্শী ভগবান বুদ্ধ সুর্দীঘ পয়তাল্লিশ (৪৫) বছর ব্যাপি মানব সহ সকল প্্রাণীর মঙ্গলের জন্য অমৃতময় বাণী প্্রচার করেছেন।সেসব বাণী গুলি যারা পালন করে জীবন যাপন করেন তারা বর্তমান জীবনে সুখ শান্তি লাভ করতে পারে এবং মৃত্যুর পর সুগতি প্রাপ্ত হয় । ভগবান বুদ্ধের অন্যতম বাণী হল অহিংসা পরম ধর্ম অর্থাৎ সকল জীব তথা সকল মানবের প্রতি সমভাবে মৈত্রী প্রদর্শন করা। হিংসা পরিহার করে অহিংসাময় জীবন যাপন করতে নির্দেশ দিয়েছেন। মা যেমন সন্তানের প্রতি অবিরত ভাবে অহিংসা পরায়ন থাকেন ঠিক সেরুপ ভাবে সকল জীব তথা মানবের প্রতি সকল মানব অহিংসা পরায়ন হলে সুন্দর পৃথিবীতে সুন্দর ভাবে মানবগন সুখে জীবন যাপন করতে পারবে। আজ আধুনিক বিশ্বে বুদ্ধের বাণী আহিংসা না থাকার কারণে মারা-মারি,যুদ্ধ,রক্তপাত সহ বিভিন্ন ভাবে মানুষের জীবন যাপন হয়ে উঠছে বিষাদময়।

অন্য ধর্মের অনুসারিদের কথা বাদ দিয়ে শুধু বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারিদের কথায় আসা যাক,যেহেতু আমরা নিজেরা নিজেদেরকে বৌদ্ধ বলে দাবি করি সেহেতু বুদ্ধের বাণী মেনে চলা আমাদের কর্তব্য । আসলে আমরা কি বুদ্ধের বাণী অহিংসা পরম ধর্ম বাণীটি মেনে চলি বা আমরা বিশ্বাস করি, যদি বিশ্বাস করি তবে আমাদেরকে হিংসা পরিহার করতে হবে। আমরা যারা বৌদ্ধ আমরা কি যথাযথ ভাবে বুদ্ধের বাণী অনুসরণ করছি। আমার মনে হয় আমি করছিনা, যদি আমিসহ আমরা সবাই বুদ্ধের বাণী অহিংসা পরম ধর্ম পালনে রত থাকতাম তবে আজ দেশে, সমাজে,বিহারে, সংগঠনে, নিকায়ে এত ভেদাভেদ কথা কাঁটা-কাটি, মাম লামোর্কাদ্দমা হত না।

শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো
© All rights reserved © 2019 bibartanonline.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarbibart251