1. pragrasree.sraman@gmail.com : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী
  2. avijitcse12@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক :
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:০৮ পূর্বাহ্ন

চসিক শিক্ষায় প্রফেসর ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া, একুশে স্মারক সম্মাননা পদক ,শিশুসাহিত্যে বিপুল বড়ুয়া সাহিত্য সম্মাননা পুরস্কার লাভ

প্রতিবেদক
  • সময় মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭
  • ৬৩২ পঠিত

চট্টগ্রাম: আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশ্ব বৌদ্ধ নেতা, বহু সংগঠনের জনক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, বৌদ্ধ গবেষক, বিশ্ব বৌদ্ধ নেতা, বহু সংগঠনের জনক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, বিশ্ব বৌদ্ধ সৌভ্রাতৃত্ব সংঘ (যুব) এর প্রাক্তন উপদেষ্টা, বৌদ্ধ সমাজ চিন্তাবিদ, প্রফেসর ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া কে শিক্ষায় অবদান রাখার জন্য একুশে স্মারক সম্মাননা পদক ২০১৭ এবং শিশু সাহিত্যিক ও ছড়াকার বিপুল বড়ুয়া কে শিশু সাহিত্যে অবদান রাখার জন্য সাহিত্য সম্মাননা পুরস্কার দেয়া হয়েছে। 

মহান একুশে উপলক্ষে উপলক্ষে নয় গুণীজনকে স্মারক সম্মাননা পদক ও সাত লেখককে সাহিত্য পুরস্কার দিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)।

মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরীর মুসলিম ইনস্টিটিউট চত্বরে একুশ মঞ্চে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন পদক ও পুরস্কার তুলে দেন।

এবার ক্রীড়ায় মো. হাফিজুর রহমান, সাংবাদিকতায় এম নাসিরুল হক, সমাজসেবায় মো. আজিম আলী, ভাষা আন্দোলনে শেখ মোজাফফর আহমেদ (মরণোত্তর), মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা আন্দোলনে বেগম মুশতারী শফী, সংগীতে শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব (মরণোত্তর) ও মরমি সংগীতে আবদুল গফুর হালী (মরণোত্তর), চিকিৎসাসেবায় প্রফেসর ডা. এএসএম ফজলুল করিমকে মহান একুশে স্মারক সম্মাননা পদক এবং কথাসাহিত্যে মোহিত উল আলম, কবিতায় অরুণ দাশগুপ্ত, নাটকে মিলন চৌধুরী ও কবি অভীক ওসমান, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণায় ডা. মাহফুজুর রহমান এবং প্রবন্ধে ড. মাহবুবুল হককে সাহিত্য সম্মাননা পুরস্কার দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে শ্যামসুন্দর বৈষ্ণবের পক্ষে তার ছেলে প্রেমসুন্দর বৈষ্ণব, আবদুল গফুর হালীর পক্ষে তার নাতি মাইনুল হক জুয়েল, শেখ মোজাফফর আহমদের পক্ষে তার ছেলে শেখ শহিদুল আনোয়ার, বেগম মুশতারী শফীর পক্ষে তার ছেলে মেরাজ তাহ্সিন শফী এবং মো. হাফিজুর রহমানের পক্ষে তার ছেলে সাকিবুর রহমান পদক ও পুরস্কার গ্রহণ করেন।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বাঙালি জাতির স্বকীয়তা গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, বাঙালি জাতীয়তাবাদ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং ধর্মনিরপেক্ষতার প্রতীক অমর একুশ।

তিনি বাংলা ভাষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে অন্যান্য ভাষাও শিখতে অনুরোধ জানান। মেয়র নতুন প্রজন্মের মধ্যে মাতৃভাষার প্রতি গভীর আগ্রহ সৃষ্টি এবং তাদের দেশ ও জাতির জন্য আত্মত্যাগী হওয়ার উপযোগী করে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

স্বাগত বক্তব্য দেন শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি নাজমুল হক ডিউক। অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ বক্তব্য দেন প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা নাজিয়া শিরিন। উপস্থাপনায় ছিলেন মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম (মানজুর মাহমুদ)।

শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো
© All rights reserved © 2019 bibartanonline.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarbibart251