1. pragrasree.sraman@gmail.com : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী : ভিকখু প্রজ্ঞাশ্রী
  2. avijitcse12@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক :
শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ০১:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ধম্মকথা’ বৌদ্ধ অনলাইন মুখপত্র এর উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ রাউজানে বিদর্শনসাধক লোকানন্দ ভিক্ষুর থের বরণ অনুষ্ঠান ভদন্ত বুদ্ধপ্রিয় মহাথের সকাশে বৃহত্তর হোয়ারপাড়া বৌদ্ধ কল্যাণ সমিতি নেতৃবৃন্দ উত্তবঙ্গের আদিবাসীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ ভদন্ত জ্যোতিমিত্র স্থবিরের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন ঢাকায় বৌদ্ধদের জন্য সার্বজনীন শ্মশান নির্মাণের সিদ্ধান্ত হাটহাজারীর জোবরা গ্রামে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় পরলোকে ভদন্ত জ্যোতিমিত্র স্থবির উখিয়ার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “অগ্রযাত্রা কল্যাণ পরিষদ”র কমিটি গঠন মারমা ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন এর রাঙ্গামাটি জেলা  শাখা গঠন

শীল বিশুদ্ধি

প্রতিবেদক
  • সময় সোমবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • ৭৭৫ পঠিত

সুলেখা বড়ুয়া

সম্যক সম্বুদ্ধের উদঘাটিত নীতিমালা তথা সদ্ধর্ম মূলত – শীল, সমাধি, প্রজ্ঞা ।
শীল সমাধি ও প্রজ্ঞা ব্যতিত নির্বাণ লাভ সম্ভব নয়, তম্মধ্যে সম্যক বাক্য, সম্যক কম্ম ও সম্যক আজীব –
শীল বিশুদ্ধি, সম্যক ব্যায়াম, সম্যক স্মৃতি ও সম্যক সমাধি
সমাধি বিশুদ্ধি, সম্যক দৃষ্টি ও সম্যক সংকল্প – প্রজ্ঞা বিশুদ্ধি
সেই হিসাবে শীল পরিপূরণে সম্যক বাক্য, সম্যক কর্ম ও সম্যক আজীব ব্যতিত শীল বিশুদ্ধি লাভ অসম্ভব ।

জগতে যে কেউ যে যেভাবেই শীল পালন করুক না কেন, এ তিনটি বিষয় আচরণ ব্যতিত শীল বিশুদ্ধি লাভ সম্ভব নয় ।
শীল – সমাধি – প্রজ্ঞা একটা অন্যটার সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত । ধরাধামে বিচরণ পথে শীল আচরণের মাধ্যমে যখন পরিপূর্ণ হয়, তখন চিত্ত ও বিশুদ্ধিতে পূর্ণতা লাভ করে । এহেন পরিপূর্ণতা লাভে কার্যকারিতায় সমাধি পূর্ণতা পায় । আর এ দুয়ের পূর্ণতায় প্রজ্ঞা উৎপন্ন হয়ে মানব মার্গলাভের পথে অগ্রসর হয় ।

তাই তথাগত মহাকারুণিক গৃহিদের জন্য পঞ্চনীতি স্থায়ীভাবে নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন, প্রথমে শীল আচরণের মাধ্যমে নিজেকে কিভাবে বিশুদ্ধ পথে পরিচালনা করা যায় তা অনুশীলন করতে হবে ।

প্রতিটি মানুষের জীবনে শীল পালনের গুরুত্ব অপরিসীম, কেননা, একজন মানুষের মনুষ্যত্বের পূর্ণ বিকাশে শীলের কোন বিকল্প নেই । দান করলে দানের পুণ্যফল অবশ্যই লাভ করবে । কোন না কোনজন্মে কিন্তু বিশুদ্ধভাবে শীল পালন এবং সমাধিচর্চা না করলে দুঃখ থেকে মানুষ কোনদিন মুক্ত হতে পারবেনা । জীবন হচ্ছে ক্ষণভঙ্গুর এবং ততোধিক ক্ষণভঙ্গুর এ ধারার এ দেহ । এজন্য মনুষ্য জন্মে যতদিন সুস্থভাবে বেঁচে থাকা যায়, প্রত্যেকটি দিন, ক্ষণ, মুহূর্ত খুবই গুরুত্ব বহন করে ।

চিন্তা করে দেখা যাক -পুর্ববর্তী দিনের সাথে আজ এবং আগামীকাল কিছুতেই মেলানো যায় না । সুতারাং মনুষ্য জন্মকে স্বার্থক রুপে মূল্যায়ন করতে হলে নিজেকে সর্বাগ্রবর্তী শীল বিশুদ্ধি আচরণে সর্বদা নিয়োজিত রাখতে হবে । শীল বিশুদ্ধি ব্যতিত যেমন, মার্গফল লাভ করা অসম্ভব, তেমনি মার্গফল লাভ না করলে দুঃখ মুক্তি সুদূর পরাহত । কারণ শীল বিশুদ্ধির মাধ্যমে সমাধিতে বিচরণ করে বিদর্শন ভাবনায় রত থাকতে পারলে নির্বাণ লাভ সম্ভব ।

চক্রবালবাসী সুখী হউক ।

শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো
© All rights reserved © 2019 bibartanonline.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazarbibart251